প্রফেসর অ্যাডভোকেট কামরুল নাহার বেগম

দিশারী যুব ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ এর উপদেষ্টা ও আইন-আদালত প্রতিদিনের প্রধান উপদেষ্টার সংক্ষিপ্ত পরিচিতি চট্টগ্রাম জজ আদালত এবং বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট হাইকোর্ট ডিভিশন এর বিশিষ্ট আইনজীবী -১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক প্রফেসর এ্যাডভােকেট কামরুন নাহার বেগম এর জন্ম স্থান চট্টগ্রাম জেলার পটিয়া থানার অন্তর্গত খানমােহনা গ্রামের সম্রান্ত পরিবারের মেয়ে । পিতার নাম মােহাম্মদ আবদুল মালেক এবং মাতার নাম রাবেয়া খানম , পিতা আবদুল মালেক ছিলেন পােট ট্রাস্টের একজন উর্ধতন কর্মকর্তা । প্রাথমিক শিক্ষা ও মাধ্যমিক শিক্ষা সমাপ্ত করেন পটিয়ার গ্রামে বাড়ীতে । তিনি উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করেন – চট্টগ্রাম সরকারী হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজ থেকে , স্নাতক ডিগ্রি করেন ঐতিহ্যবাহী রাঙ্গুনিয়া ডিগ্রি কলেজ হতে । ১৯৮০ সালে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় হতে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে এম , এ ডিগ্রি লাভ করেন । ১৯৮১ সনে চট্টগ্রাম বি , এড কলেজ হতে প্রথম শ্রেনীতে বি , এড ডিগ্রি লাভ করেন এবং ১৯৮৭ সনে চট্টগ্রাম আইন কলেজ থেকে কৃতিত্বের সাথে এল , এল , বি , ডিগ্রি লাভ করেন । প্রফেসর এ্যাডভােকেট কামরুন নাহার বেগমের কর্মজীবন শুরু হয় চট্টগ্রাম এর রাঙ্গুনিয়ার অন্তর্গত দক্ষিন রাঙ্গুনিয়া পদুয়া ডিগ্রি কলেজে রাষ্ট্রবিজ্ঞান – এর অধ্যাপক হিসেবে । এরপর তিনি ১৯৮৮ সালে আইন পেশায় যােগদান করে অদ্যাবধি আইন পেশায় । নিয়ােজিত আছেন । তার সুদীর্ঘ কর্মময় জীবনে তিনি বিভিন্ন সামাজিক , সাংস্কৃতিক , রাজনৈতিক , নারী উন্নয়ন ও মানবধিকার মূলক বিভিন্ন কর্মকান্ডে , প্রত্যক্ষভাবে জড়িত রয়েছে । তিনি ২০০৯ সনে ডিভিশনাল স্পেশাল পি , পি হিসেবে নিয়ােগ লাভ করেন । বর্তমানে তিনি চট্টগ্রাম জজ আদালতে- Judge’s Court- এ Additional Public Prosecutor হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন । তিনি – বাংলাদেশ মানবধিকার এসােসিয়েশন এর চেয়ারম্যান , তিনি নারী অধিকার এবং সমাজে নারীদের মর্যাদা সম্পর্কে স্থানীয় পত্র / পত্রিকায় লিখে থাকেন , বিভিন্ন সময়ে তিনি টিভি / রেডিওতে নারী নির্যাতন এবং নারীদের অধিকার ও নারী সুরক্ষা সম্পর্কে আইনগত বক্তব্য রেখেছেন । তিনি Human Rights Commission Chittagong Division – 13 প্রাক্তন ডিবিশনাল Co – ordinator ছিলেন , তিনি চট্টগ্রাম জেলার Human Rights Commission এর প্রাক্তন সভাপতি , তিনি বৃহত্তর চট্টগ্রাম উন্নয়ন সংগ্রাম কমিটির ভাইস – প্রেসিডেন্ট , চট্টগ্রাম Red Crescent Society এর আজীবন সদস্য , তিনি – চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতালের আজীবন সদস্য , তিনি বাংলাদেশ মহিলা ইসলামী পাঠাগার এর সদস্য , Ladies Club এর সদস্য , চট্টগ্রাম Rose Garden এর পি.পি. তিনি ছাত্রী অবস্থা থেকেই আওয়ামী রাজনীতির সাথে জড়িত । বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ মহিলা । আওয়ামী লীগ কেন্দ্রিয় কমিটির কার্যকরী সদস্য , তিনি দক্ষিণ জেলা চট্টগ্রাম আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য , তিনি বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ চট্টগ্রাম এর সভাপতি , তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ কেন্দ্রিয় কমিটির সদস্য এবং জাতীয় পেশাজীবী পরিষদ কেন্দ্রিয় কমিটির সহ – সভাপতি । এ ছাড়াও প্রফেসর এ্যাডভােকেট কামরুন নাহার বেগম একজন সফল মানবধিকার কর্মী হিসেবে ২০০০ সালে মানবধিকার । কমিশনের জাতীয় সম্মেলনে “ ন্যাশনাল হিউম্যান রাইটস ” পদকে ভূষিত হন , দুঃস্থ নারী ও মহিলাদের সহায়তা দানের স্বীকৃতি স্বরুপ যুক্তরাষ্ট্রের “ বায়ােলজিকেল ইনস্টিটিউট ” ২০০৩ সালে তাঁকে “ ওম্যান অফ দ্যা ইয়ার ” মনােনীত করে । – ২০১০ সালে একজন সফল আইনজীবী হিসেবে “ সাহিত্যিক আবুল ফজল ফাউন্ডেশন ” কর্তৃক আয়ােজিত গুনিজন সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তাকে সম্মাননা প্রদান । করা হয় । সুপ্রভাত রাউজান ট্রাস্ট ‘ – চট্টগ্রাম – কর্তৃক আয়ােজিত মানবাধিকার সম্মেলন ও বিজয় উৎসব – ২০১০ – এ গুনিজন সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সফল মানবাধিকার সংগঠক হিসেবে তাকে মানবধিকার দিবস ‘ – এ্যাওয়ার্ডে ভূষিত করা হয় , মাসিক সুপ্রভাত রাউজান ও সাপ্তহিক শিরােনাম কর্তৃক আয়ােজিত অনুষ্ঠানে -২০১১ সালে মুক্তিযােদ্ধা সংগঠনে ও মানবধিকারে অবদান রাখার জন্য তাঁকে ‘ মুক্তিযােদ্ধা সংগঠন সম্মাননা -২০১১ ‘ প্রদান করা হয় । তিনি পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ বিশেষ করে এশিয়া এবং ইউরােপ মহাদেশের ১৩ টি দেশ পরিভ্রমন করেছেন । পরবর্তীতে তিনি অস্ট্রেলিয়া ভ্রমণ করেন । পরিভ্রমনকালে তিনি সেই সমস্ত দেশসমূহের শিক্ষা সংস্কৃতি , রাজনীতি , অর্থনীতি , আর্থ – সামাজিক অবস্থাও নানা বিষয়ে বাস্তব অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করেন , তার এই অভিজ্ঞতা নিজ দেশের শিক্ষা সংস্কৃতি , মানবধিকার , নারী উন্নয়ন ও নানা বিষয়ে কাজে লাগানাের চেষ্টা করেন । এশিয়া এবং ইউরােপ মহাদেশের যেই সমস্ত দেশ তিনি ভ্রমন করেছেন — সেই গুলাের মধ্যে রয়েছে ভারত , সিঙ্গাপুর , থাইল্যান্ড , মালয়েশিয়া , সৌদি আরব , বেলজিয়াম নেদারল্যান্ডস , জার্মানী , ফ্রান্স , ইংল্যান্ড , লুক্সেমবার্গ , ইটালি , সুইজারল্যান্ডসহ পরবর্তীতে অস্ট্রেলিয়া মহাদেশ পরিভ্রমন করেছেন । সেই দেশ সমূহের রাজনীতি , অর্থনীতি , ধর্মীয় , শিক্ষা – সংস্কৃতি , ইতিহাস – ঐতিহ্য , এবং সামাজিক অবস্থা , সর্বোপরি সেই দেশ সমূহের আইন এবং বিচার ব্যবস্থা সম্পর্কে সম্যক জ্ঞান আহরন এবং উল্লিখিত দেশ সমূহের ঐতিহাসিক নিদর্শন এবং দর্শনীয় স্থান সমূহ স্বচক্ষে অবলােকন । করে বাস্তব জ্ঞান আহরন ও অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করে নিজ দেশের পাঠক সমাজের কাছে উল্লিখিত দেশ সমূহের সঠিক অবস্থা সম্পর্কে তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন ।